Published On: রবি, জুন ১৮, ২০১৭

খুলনায় চালের বাজার উর্দ্ধমুখি

স্টাফ রিপোর্টার :  খুলনার চালের বাজারে অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। বাজারে দফায় দফায় চালের দাম গত গত ১৫ দিনের ব্যবধানে সব ধরণের চাল পাইকারি প্রকার ভেদে কেজিতে ৫ থেকে ৮ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। চালের বাজার লাগামহীন থাকায় নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবার গুলো অসহায় হয়ে পড়েছেন। চালের মধ্যে দাম বেড়েছে বেশি আতপচালের (রানী)। পাইকারিতে বেড়েছে কেজি প্রতি ৭ টাকা। চাল মিলদের কারসাজিতে চালের বাজার এ অবস্থা বলে খুচরা বিক্রেতাদের দাবি। গতকাল শনিবার খুচরা বিক্রেতাদের সাথে আলাপকালে তারা এ তথ্য জানিয়েছেন।

আইচগাতী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল বলেন, দেশে খাদ্যের কোন ঘাটতি নেই। এক ধরণের সিন্ডিকেট মহল অতিলাভের আশায় এমন জঘন্য কাজ করছে। স্বর্ণা চাল ৩৯.৫০ টাকার পরিবর্তে ২ টাকা কেজিতে বৃদ্ধি পেয়ে ৪১.৫০ টাকা, মিনিকেট ৫১ টাকার পরিবর্তে ৫৩ টাকা, আতপ (কাছরা) চাল ৪৪ টাকার পরিবর্তে ৪৮ টাকা, ২৮ বালাম চাল ৪৬ টাকা নাজিরা চাল ৫৩ টাকার পরিবর্তে ৫৬ টাকা, বাঁশমতি চাল কেজি প্রতি ১.৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে পাইকারিতে ৫৭ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া খুচরা মোটা চাল কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪০, স্বর্ণা বিক্রি হচ্ছে ৪৪-৪৫ টাকা, আতপ (রানী) চাল ৫৪ টাকা, ২৮ বালাম চাল ৪৮ টাকা এবং নাজিরশাল চাল ৫৮.৫০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে বলে জানান খুচরা ব্যবসায়ী শরিফুল ইসলাম। তিনি আরও বলেন, রোজার সময় চালের দাম স্থিতিশীল থাকার কথা কিন্তু এবার চালের বাজার উল্টো।

চাকুরীজীবী বেল্লাল শিকদার বলেন, সরকারের উচিৎ চাল মিলার ব্যবসায়ী এবং সিন্ডিকেট মহলকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে বিচার করা। আব্দুর রহিম বলেন, প্রতি রমজান মাসে সাধারণ মানুষের চালের চাহিদা কম থাকে। সে কারণে চালের ঘাটতির কোন সম্ভাবনা নেই। কিন্তু এবার দেখা গেছে উল্টো। দফায় দফায় বাড়ছে চালের দাম। ও এম এস চাল ও বিক্রি বন্ধ রয়েছে। খুচরা বাজারে দেখা যাচ্ছে সাধারণ জনতার কেজি প্রতি ১০-১২ অতিরিক্ত মূল্য গুনতে হচ্ছে।

আরও খবর

(Visited 1 times, 1 visits today)

Editor : Rahmatullah Bin Habib


55/B, Purana Palton, Dhaka-1000


Email : nobosongbad@gmail.com


copyright @nobosongbad.com


খুলনায় চালের বাজার উর্দ্ধমুখি