Published On: শনি, ডিসে ১৬, ২০১৭

মহান বিজয় দিবস আজ

 বাঙালি জাতির জীবনে আজ এক আনন্দের দিন। এমনি এক দিনের প্রতীক্ষায় কেটেছে বাঙালির হাজারো বছর। বহু কাক্সিক্ষত সেই দিনটির দেখা মিলেছিল ইতিহাসের পাতায় রক্তিম আক্ষরে লেখা এক সংগ্রামের শেষে ১৯৭১ সালে, ১৬ ডিসেম্বর। ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ৪৬ বছর আগে এদিনে বর্বর পাকিস্তানি বাহিনী হাতের অস্ত্র ফেলে মাথা নিটু করে দাঁড়িয়েছিল বিজয়ী বীর বাঙালির সামনে। স্বাক্ষর করেছিল পরাজয়ের সনদে। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটেছিল স্বাধীন বাংলাদেশের।
দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহিদের আত্মত্যাগ, দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত এই বিজয়ের দিনটিতে আনন্দের পাশাপাশি বেদনাও বাজবে বাঙালির বুকে। বিনম্র শ্রদ্ধা ও গভীর কৃতজ্ঞতায় জাতি স্মরণ করবে জানা-অজানা সেসব শহিদকে। যাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সুফল ভোগ করে পেরিয়ে গেল ৪৬ বছর। তবে জাতির চলার পথ মসৃণ ছিল না কখনো। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ গড়া, দারিদ্য ও দুর্নীতি থেকে মুক্তির সংগ্রামের পাশাপাশি একইভাবে চলেছে সামরিক শাসন, গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম, যুদ্ধাপরাধের বিচার, মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ আন্দোলন। এসব আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যেই মোকাবিলা করতে হয়েছে প্রবল বন্যা, ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের। এই বন্ধুর পথপরিক্রমায় অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে। কিন্তু শত বাধা-প্রতিবন্ধকতাতেও হতোদ্যম হয়নি এ দেশের মানুষ। হারায়নি সাহস। লাল-সবুজ পাতাকা উড়িয়ে অব্যাহত আছে বাঙালির এগিয়ে যাওয়া।
আজ সকাল থেকেই সারা দেশে পথে নামবে উৎসবমুখর মানুষ। শহিদদের স্মরণ করে বিনম্র শ্রদ্ধায় দেশের সব স্মৃতিসৌধ ভরিয়ে দেবে ফুলে ফুলে। নগরীর সব বয়সী অগণিত মানুষ সমবেত হবে গল্ল¬ামারী স্মৃতিসৌধে। শ্রদ্ধার ফুলে ঢেকে যাবে সৌধের বেদি। লাল-সবুজ পতাকা উড়বে আজ বাড়িতে ও গাড়িতে, সব প্রতিষ্ঠানে। মাথায় থাকবে পতাকার রঙে রাঙা ফিতা। পতাকার রঙের পোশাকও থাকবে উৎসবে শামিল অনেকের পরনে। পতাকায় সজ্জিত করা হবে খুলনাসহ দেশের বড় শহরগুলোর প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপ। আজ সরকারি ছুটি। রাতে গুরুত্বপূর্ণ ভবনে করা হবে আলোকসজ্জা। হাসপাতাল, শিশুসদন ও কারাগারগুলোতে পরিবেশন করা হবে বিশেষ খাবার।

বাণী : মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এরপর মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা পুষ্পস্তবক দেবেন।

খুলনা জেলা প্রশাসন : দিবসে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে গল্লামারী শহিদ স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও প্রত্যুষে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইনে একত্রিশবার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা। সকাল সাড়ে আটটায় খুলনা জিলা স্কুল মাঠে বিভাগীয় কমিশনার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করবেন। একই স্থানে সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান এবং শরীরচর্চা প্রদর্শনী। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত নগরীর সিনেমা হলসমূহে শিক্ষার্থীদের বিনা টিকিটে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শন। দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত খুলনা পিআইডি’র আয়োজনে শহিদ হাদিস পার্কে মুক্তিযুদ্ধের ওপর স্থিরচিত্র প্রদর্শন। দুপুর ১২টা হতে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিভাগীয় জাদুঘর বিনা টিকেটে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সন্তানদের সংবর্ধনা প্রদান বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে। স্থানীয় নৌ-বাহিনীর জাহাজ জনসাধারণের দর্শনের জন্য বিআইডব্লিউটিএ রকেট ঘাটে দুপুর দুইটা হতে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উন্মুক্ত রাখা হবে। জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে বাদ যোহর বা সুবিধাজনক সময়ে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত এবং মন্দির, গীর্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা। বিকেল তিনটায় পাইওনিয়ার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় মাঠে মহিলাদের ক্রীড়া অনুষ্ঠান ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোচনা সভা এবং বিকেল সাড়ে তিনটায় খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে কেসিসি বনাম জেলা প্রশাসন একাদশের মধ্যে প্রদর্শনী ফুটবল প্রতিযোগিতা। এছাড়া সুবিধাজনক তারিখ ও সময়ে পাইওনিয়ার মাধ্যমিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহিলাদের ভলিবল/হ্যান্ডবল টুর্নামেন্ট। সন্ধ্যা ছ’টায় হাদিস পার্কে আলোচনা, সিম্পোজিয়াম এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গিলাতলা শিশুপার্ক, বয়রা শিশু পার্ক ও খালিশপুর ওয়ান্ডারল্যান্ড শিশুপার্ক বিনাটিকিটে শিশুদের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে। আজ ও কাল ডিসেম্বর শহিদ হাদিস পার্কে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক দুর্লভ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত এবং ১০টা থেকে পাঁচটা পর্যন্ত উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরিতে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক দুর্লভ ছবি ও পুস্তক প্রদর্শন। কাল (রবিবার) বিকেল ৪টায় উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরিতে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোচনা ও কবিতা আবৃত্তি।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন : দিবস উপলক্ষে ভোর ৬টায় গল্লামারী শহিদ স্মৃতিসৌধে মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, সকাল ৯টায় নগর ভবনে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া শিশুদের চিত্তবিনোদনের জন্য খালিশপুরস্থ ওয়ান্ডারল্যান্ড শিশু পার্ক ও গল্ল¬ামারীস্থ লিনিয়র পার্কে বিনামূল্যে প্রবেশের জন্য উম্মুক্ত থাকবে। শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ৩টি বিভাগে অনুষ্ঠিত হবে। প্লে থেকে নার্সারী ‘ক’ বিভাগ, ১ম ও ২য় শ্রেণী ‘খ’ বিভাগ এবং তৃতীয় থেকে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত ‘গ’ বিভাগ হিসেবে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

আওয়ামী লীগ : দিবসে সকাল সাড়ে ৬টায় গল্লামারী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন। সকাল ৯টায় দলীয় কার্যালয় হতে বিজয় র‌্যালি। র‌্যালি শেষে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখিত কর্মসূচিতে দলের সদর ও সোনাডাঙ্গা থানা কমিটি মহানগর আ’লীগের সাথে অংশ গ্রহণ করবে এবং খালিশপুর, দৌলতপুর ও খানজাহান আলী থানা স্ব স্ব থানায় অনুরূপ কর্মসূচি পালন করবে।

বিএনপি : দিবসে ভোর ৬টা ৩৩ মিনিটে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে দলের মহানগর কমিটির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন। এছাড়া বিকেল সাড়ে ৩টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ ও শেষে নগরীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি। র‌্যালিতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহিদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পোট্রেট বহন করা হবে। বেলুন, ফেস্টুন ও কবুতর উড়িয়ে র‌্যালির উদ্বোধন এবং ব্যান্ডের তালে তালে র‌্যালি শহর প্রদক্ষিণ করবে। ওই দিন সকাল ৯টায় দৌলতপুরে এবং সকাল ১০টায় খালিশপুরে থানা বিএনপি’র উদ্যোগে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।নগর বিএনপি একাংশ : দলের নগর কোষাধ্যক্ষ এস এম আরিফুর রহমান মিঠুর নেতৃত্বে দিবসের বর্ণাঢ্য র‌্যালি বিকেল ৩টায় শিববাড়ী মোড় থেকে শুরু হবে।

দৌলতপুর থানা বিএনপি : দলের থানা কমিটিসহ সকল ওয়ার্ড ইউনিয়নে ৯টায় বিজয় দিবসের র‌্যালি, দলীয় কার্যালয় সমূহে আলোক সজ্জাকরণ।

খুলনা বিসিক : আজ থেকে আগামী ১৮ ডিসেম্বর তিন দিনব্যাপী খুলনা বিসিক ভবন চত্বরে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় ক্ষুদ্র, কুটির, মাঝারি, হস্ত ও কারুশিল্প পণ্য প্রদর্শণ ও বিপণন-এর ব্যবস্থা থাকবে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত চলবে।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : দিবস উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৬টায় উপাচার্য কর্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলন। সকাল ৭টায় উপাচার্যের নেতৃত্বে অদম্য বাংলায় শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ। এরপর বিকেল সাড়ে ৪টায় মুক্তমঞ্চে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের সংগঠনসমূহের আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ক্যাম্পাসে আলোকসজ্জা ও দিনব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : দিবসের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সকাল ৯টায় স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সেন্টারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সন্তানদের অংশগ্রহণে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী, সকাল সাড়ে ৯টায় দুর্বার বাংলা চত্বরে গণসঙ্গীত, সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে ভাইস-চ্যান্সেলর, সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীসহ দুর্বার বাংলার পাদদেশে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ, বিকেল সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠে শিক্ষক বনাম ছাত্রের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, বাদ আসর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়ার অনুষ্ঠান এবং সন্ধ্যায় স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সেন্টারে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন : দিবসে সংগঠনের খুলনা জেলা দক্ষিণের উদ্যোগে প্রথম প্রহরে জেলা ও সকল থানা শাখার ব্যবস্থাপনা পরিচ্ছন্ন অভিযান৷৷ একই দিনে জেলা কার্যালয়ের সামনে বিকেল ৩টায় সমাবেশ ও বিজয় র‌্যালিসহ মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক আলোকচিত্র প্রর্দশন ৷ দিশারী যুব

পর্ষদ : দিবসে খানজাহান আলী থানার এ সংগঠনটি আজ থেকে ১৯ ডিসেম্বর ৪ দিনের বিজয় অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। কর্মসূচির মধ্যে আজ সকাল ৯টায় বিজয় শোভাযাত্রা। তাছাড়া ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, মুক্তিযোদ্ধা ভিত্তিক আলোচনা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও জারিগান রয়েছে।

খুলনা নাট্য নিকেতন : খুলনা মুক্ত দিবস উপলক্ষে আগামীকাল রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় শহিদ হাদিস পার্কে আলোচনা সভা, কবিতা আবৃত্তি, বিজয়ের গান, নৃত্য ও নাট্যানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
সুর ছন্দ : বিকেল ৫টায় জোহরা খাতুন শিশু বিদ্যানিকেতনের মান্না-সৌম মিলনায়তনে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

 

আরও খবর

(Visited 1 times, 1 visits today)

Editor : Rahmatullah Bin Habib


55/B, Purana Palton, Dhaka-1000


Email : nobosongbad@gmail.com


copyright @nobosongbad.com


মহান বিজয় দিবস আজ